অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

২০২১ সাল তথ্য প্রযুক্তির স্বর্ণযুগ বলা চলে। এ যুগে সবকিছুই এখন প্রযুক্তি নির্ভর। এমনকি মানুষের ইনকাম সোর্সগুলোও। ব্যবসা বাণিজ্য থেকে শুরু করে পড়াশোনা , বিনোদন, যেকোন অফিশিয়াল কাজকর্ম সবকিছুই অনলাইনে সম্পন্ন করা হচ্ছে। যার ফলে অনলাইনে ইনকাম করা খুবই কমন একটি বিষয়।

বর্তমানে কমন একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে তা হলো অনলাইনে ইনকাম করার উপায় কি কি। অনলাইনে ইনকাম করার অনেক উপায় রয়েছে। তবে তাদের সবগুলো পারফেক্ট নাও হতে পারে। দীর্ঘদিন ধরে এই প্লাটফর্মে কাজ করার ফলে আমার নিজের ব্যক্তিগত কর্মদক্ষতার ভিত্তিতে আপনাদের কিছু উপায় আমি সাজেস্ট করতে পারি। যেগুলো দিয়ে সহজেই ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করা যায়।

অনলাইনে কি কি কাজ করা যায়

Blogging

অনলাইনে কাজ করার এই লিস্টে সবার উপরে আমি ব্লগিংকেই জায়গা দেব। আপনার যদি লেখালেখির প্রতি আগ্রহ থাকে বা লেখালেখি করতে আপনি ভালোবাসেন তবে অনলাইনে ইনকাম করার ক্ষেত্রে ব্লগিং আপনার জন্য বেস্ট একটি ওয়ে হতে পারে।

এর জন্য প্রথমে একটি ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেইজ ওপেন করতে হবে। এরপর পেইজটিতে খুব সুন্দরভাবে প্রফেশনাল লুক দেওয়ার চেষ্টা করুন। এরপর সেখানে আপনার পছন্দের নিশের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন লেখা নিয়মিত পোস্ট করুন। এভাবে সাইটে ভিজিটর আসতে থাকলে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং আবেদন Accept হয়ে গেলেই শুরু হয়ে গেল অনলাইন ইনকাম। এভাবে প্রতি মাসে অনেক বড় অংকের টাকা এখান থেকে ইনকাম করা সম্ভব।

YouTube

বর্তমানে ইউটিউবে কাজ করেও অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। এজন্য প্রথমে একটি ইউটিউব চ্যানেল Create করতে হবে। এরপর সেই চ্যানেলে ইউটিউবের সকল অফিশিয়াল Terms and Conditions মেনে রেগুলার ভিডিও পোস্ট করতে হয় এবং Subscription বাড়াতে হয়। 

যদিও ইউটিউব বর্তমানে প্রথম সারির একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট, এখানে ভিডিও শেয়ার করা কঠিন কিছু নয়। আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি দিয়েই ভিডিও রেকর্ড করা যেতে পারে। সেটা হতে পারে কোনো টিউটোরিয়াল ভিডিও, কুকিং ভিডিও, ট্রাভেলিং ভিডিও বা যে কোনো ফানি ভিডিও। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই মাথায় রাখবেন কোনোভাবে কোন ভিডিও কপি করা যাবে না। তাহলে কপিরাইট আইনে ফেঁসে যাবেন। কিন্তু এসবের বাহিরে যদি নিয়মিত মানসম্মত ভিডিও পোস্ট করতে পারেন তবে এই প্লাটফর্মে নিঃসন্দেহে ভবিষ্যত আছে।

Affiliate Marketing

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং অনলাইনে আয় করার অন্যতম সেরা একটি উপায়। Amazon Associates, eBay Partners, Shopify Affiliate Program এর মত আরও অনেক জনপ্রিয় প্লাটফর্ম রয়েছে যেখান থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে ইনকাম করা যায়।

এর জন্য আপনাকে এসব ই-কমার্স সাইটের প্রোডাক্ট অনলাইনে বিত্রয় করতে হবে। তাহলে ঐ প্রোডাক্ট এর বিক্রয়মূল্যের উপর আপনি একটি অ্যাফিলিয়েট কমিশন লাভ করবেন। এভাবে আপনি যত বেশি পণ্য বিক্রয় করতে পারবেন আপনার উপার্জনও তত ভালো হবে।

Article Writing

অনলাইন ইনকামের এই যুগে, আর্টিকেল রাইটিং One Of The Best Sources Ever. কথাটি আমি জোড় দিয়ে একারণেই বলছি যে আমি নিজেই আপনার সম্মুখে একটি জলজ্যান্ত প্রমাণ। আপনার ভিতর যদি পেশাদারিত্ব, ধৈর্য্য এবং কাজের প্রতি আগ্রহ এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয় থাকে তবে Easily আর্টিকেল রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব। কেননা এখনকার সময় ভালো আর্টিকেল রাইটারদের বিপুল চাহিদা।

Facebook Page

সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলোর মধ্যে বর্তমানে ফেসবুক সবার শীর্ষে। প্রতিদিন অনেক মূল্যবান সময় আমরা এই ফেসবুকে ব্যয় করি। কিন্তু এই সময়টাকে সঠিক উপায়ে কাজে লাগালেই এখান থেকেও অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।

ফেসবুক পেজের মাধ্যমে এখন অনলাইনে টাকা উপার্জন করা যায়। এজন্য প্রথমে একটি ফেসবুক পেইজ ওপেন করতে হয়। এরপর সেখানে ভালো মানের ভিডিও, কনটেন্ট ইত্যাদি শেয়ার করে অথবা ই-কমার্সের মাধ্যমে ঘরে বসে ইনকাম করা যায়।

E-commerce

ই-কমার্স হলো ইলেকট্রনিক কমার্স এর সংক্ষিপ্ত রূপ। এর মানে হলো ইন্টারনেটের সাহায্যে অনলাইনে ব্যবসা করা। বর্তমানে সারা বিশ্বজুড়ে ই-কমার্সের বিপুল চাহিদা। যেকোন প্রকারের ব্যবসাই এখানে করা যায়। ছোট থেকে বড় যে কোন ধরনের উদ্যোক্তা এখানে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন।

এর জন্য ওয়েবসাইট, মোবাইল অ্যাপ এবং বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম যেমন- ফেসবুক পেজ, ফেসবুক গ্রুপ ইত্যাদি ক্ষেত্রগুলো মূল হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ এসব সাইটে পণ্য প্রোমোট করে কাঙ্ক্ষিত কাস্টমারের নিকট তা পৌছো দেয়া যায় এবং এভাবে অনলাইনে কাজ করে অর্থ উপার্জন করা যায়।

Digital Marketing

অনলাইনে ইনকাম করার সবথেকে বড় সোর্স যেটি তা হলো ডিজিটাল মার্কেটিং। অনলাইন অফলাইন প্রতিটি ক্ষেত্রেই একজন ডিজিটাল মার্কেটার এর চাহিদা আকাশচুম্বি। আর যদি নিজেকে সঠিকভাবে গড়ে তোলা যায় তবে তো কথাই নেই। 

বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখন যেমন ডিজিটাল মার্কেটারের চাহিদা, অনলাইন ই-কমার্স সাইটগুলতেও ডিজিটাল মার্কেটিং অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তাই অনতিবিলম্বে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন।

Social Media Marketing

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবথেকে বড় ক্ষেত্রটি হলো সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। যেহেতু বেশিরভাগ মানুষজন সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলোতে দিনের অনেক লম্বা সময় ব্যয় করেন তাই ডিজিটাল মার্কেটাররা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াগুলোকে কাজের মূল ক্ষেত্র হিসেবে বেছে নিয়েছে।

বর্তমানে বেশিরভাগ কোম্পানি তাদের প্রোডাক্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার এবং বিত্রয় করে অনেক টাকা ইনকাম করছে। এভাবে আপনার যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এ ভালো ধারণা থাকে তবে বিভিন্ন কোম্পানির পণ্যের প্রমোশন করে ইনকাম করতে পারবেন। এর জন্য প্রচুর পরিমাণ ফলোয়ার্স রয়েছে এমন 2-3 টি ফেসবুক পেজ বা গ্রুপ থাকলেই সেখানে পণ্যের পেইড প্রোমশন করে অনলাইনে আয় করা যায়।

Android Apps

মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের মাঝে বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহারের প্রবণতা অনেক বেশি। ক্যালেন্ডার, ক্যালকুলেটর, ডিকশনারি, ল্যাঙ্গুয়েজ কনভার্টার, বুকস, সাজেশনস ইত্যাদি প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো মানুষজন অ্যাপস এর মাধ্যমে ব্যবহার করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। এছাড়া বিভিন্ন ওয়েবসাইটগুলোকেও এখন অ্যাপস এ কনভার্ট করতে দেখা যায়। 

তাই বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে সেগুলো গুগল প্লে স্টোরে আপলোড করে Google Admob এর মাধ্যমে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। অ্যাপ তৈরি করার জন্য কোডিং এর ধারণা থাকতেই হবে এমন কিছু নেই। কোডিং ছাড়াই মোবাইল দিয়ে অ্যাপ তৈরি করে প্রাথমিকভাবে ইনকাম শুরু করতে পারেন। পরবর্তীতে অভিজ্ঞতার সাথে সাথে কোডিং শিখে এই প্লাটফর্মে নিজেকে অনেক শক্তভাবে উপস্থাপন করতে পারবেন।

SEO (Search Engine Optimization)

বর্তমানে ইন্টারনেটে মিলিয়ন মিলিয়ন ওয়েবসাইট রয়েছে এবং প্রতিদিন অসংখ্য নতুন নতুন ওয়েবসাইট তৈরি হচ্ছে। যেকারণে এই ফিল্ডে প্রতিযোগিতার হারও বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রত্যেকেই চায় যে তার সাইট যেন গুগল প্রথম পাতাতেই Rank করে। অর্থাৎ আপনার সাইটের যেই নিশে সেই নিশেতে যদি কেউ সার্চ করে তাহলে আপনার সাইটটি যেন সবার উপরে চলে আসে। আর ওয়েবসাইটকে এভাবে সবার উপরে নিয়ে আসার যে পদ্ধতি সেটিই হলো এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। 

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের সাইটের এসইওর জন্য SEO এক্সপার্টদের হায়ার করে থাকেন। তাই নিজেকে একজন এসইও এক্সপার্ট হিসেবে বিল্ড করার মাধ্যমে অনলাইন প্রতিদিন অনেক টাকা ইনকাম করা যায়।

এই ছিলো আজকের অনলাইনে ইনকাম করার উপায় সম্পর্কিত আজকের আলোচনা। অনলাইনে সব থেকে বেশি চাহিদা রয়েছে এমন সব ক্ষেত্র নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। সুতরাং এসব ক্ষেত্রে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে সহজেই ঘরে বসে অনলাইনে আয় করতে পারবেন। 

তবে মনে রাখবেন সব ক্ষেত্রেই সফলতার জন্য সময়, শ্রম ও ধৈর্য্যের কোন বিকল্প নেই। অনলাইনে কাজের ক্ষেত্রেও তাই। এখানে আপনি রাতারাতি সফল হয়ে যাবেন না। এজন্য ধৈর্য্য নিয়ে কাজের পিছনে লেগে থাকতে হবে। এভাবে একটা সময় নিশ্চিত সফলতা আসবে এবং প্রতি মাসে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Leave a Reply