গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন শিখবেন?

গ্রাফিক্স ডিজাইন বা চিত্রকলা বলতে আমাদের মনোজাগতিক চিন্তা-ভাবনা কে চিত্রকলা বা ড্রইংয়ের মাধ্যমে বহিঃপ্রকাশ করাকে বোঝায়। আমাদের এই মনস্তাত্ত্বিক কল্পনাগুলোকে চিত্রকলায় রুপ দেয়ার জন্য আমারা দুইটি মাধ্যমকে ব্যবহার করে থাকি। এগুলো হলো- (১) কাগজ ও রং-তুলি মাধ্যম  (২) ডিজিটাল মাধ্যমে কম্পিউটারের সাহায্যে।

বাস্তবিক জীবনে এমন অনেক কিছুই আছে যা আমরা চাইলেও করতে পারি না। কিন্তু গ্রাফিক্স ডিজাইন  আমাদের মনের কল্পনাগুলোকে ফুটিয়ে তুলতে পারার মতো অসম্ভবকে সম্ভবে পরিনত করতে পারার সু্যোগ করে দিয়েছে। তাই বলে গ্রাফিক্স ডিজাইন শুধু যে ড্রয়িং বা আঁকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ তা কিন্তু নয়। ড্রয়িংয়ের সীমাবদ্ধতা পেরিয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইনের সবথেকে বড় পরিচয় হলো এটি একটি শিল্প, যার স্রষ্টা হলেন শিল্পী।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন শিখবেন?

গ্রাফিক্স ডিজাইন আপনি কেন শিখবেন তার কারণ হিসেবে হাজারটা কারণ বলে দেয়া যায়। তবে কোনো কিছু শেখার পেছনে আমাদের ৩টি মূখ্য উদ্দেশ্য থাকে তা হলো চাহিদা (Demand) ও উপার্জন (Income) ও সম্মান (Honor)। গ্রাফিক্স ডিজাইন হলো এমন একটি পেশা যেখানে আপনি এ তিনটি উদ্দেশ্যই খুব ভালোভাবে পূরণ করতে পারবেন।

বর্তমানে বিশ্বে সব থেকে চাহিদাসম্পন্ন ও দামি কাজগুলোর একটি হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইনিং বা চিত্রকলা। যার কর্মক্ষেত্রের পরিধি সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েই চলেছে। আধুনিকতার এই যুগে সময়ের সাথে সাথে মানুষের চাহিদা ও রুচিবোধ উন্নত হচ্ছে, যার কারনে সবকিছুতেই গুরুত্ব পাচ্ছে নান্দনিকতা ও শৈল্পিক দৃষ্টিভঙ্গি।

ফ্রিল্যান্সার মাসুমের সফলতার গল্প

আজকের এই ডিজিটাল যুগে আপনার ভিজিট করা অসংখ্য ওয়েবসাইট (ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব) থেকে শুরু করে আপনার চাকরির সিভি কোন কিছুই কিন্তু গ্রাফিক্স ডিজাইন ছাড়া সম্ভব নয়। শুধু এটুকুতেই নয়, আমাদের পড়ার বই থেকে শুরু করে, কলম, কাপড়, বিজ্ঞাপন, চলচিত্র, স্থাপত্য সবকিছুতেই এখন পাওয়া যায় গ্রাফিক্স ডিজাইনের ছোঁয়া, যা কোনো না কোনো ডিজাইনার ডিজাইন করে যাচ্ছে।

শুধু কাজের ক্ষেত্রেই নয়, সম্মান প্রাপ্তি ও অর্থ উপার্জনের ক্ষেত্রেও গ্রাফিক্স ডিজাইন রয়েছে বিশ্বের শীর্ষ পেশাগুলোর কাতারে। তাইতো বিশ্বের নামিদামি সব জায়গায় নিরবে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজটি করে যাচ্ছে কোনো না কোনো চিত্রকর্ম। সৃজনশীলতা থাকলে লিয়োনার্দো দ্য ভিঞ্চি, পাবলো পিকাসোর মতো বিশ্বখ্যাতদের কাতারে আপনিও সম্মানীয় একজন হয়ে থাকতে পারবেন। 

তাই আপনার যদি এমন একটি পেশার সাথে যুক্ত হতে চান যেখানে বৃহৎ পরিসরে কাজ করার সুবিধার পাশাপাশি আর্কষনীয় অর্থ উপার্জনের সুযোগ রয়েছে, তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইন পেশায় আপনাকে স্বাগতম।

মনে রাখবেন একজন শৈল্পিক মানুষের কাছে রঙ-তুলি পৃথিবীর যেকোন শক্তিশালী অস্ত্রের তুলনায় কোনো অংশেই কম নয়। 

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে কি করা যায়?

গ্রাফিক ডিজাইন হচ্ছে এমন একটি সেক্টর যার কাজের পরিধি অনেক বিস্তৃত।

আমরা কম্পিউটার বা মোবাইলে যেসব গেমস খেলি কিংবা যে সব অ্যাপস বা ওয়েবসাইটে ভিজিট করি তার সবগুলোই কিন্তু গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমেই তৈরি করা হয়েছে।

শুধু তাই নয় আমাদের চারপাশের বই-পুস্তক থেকে শুরু করে লিফলেট পেপার-পত্রিকা নিত্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন দ্রব্যাদির লেভেল, পোশাক সবকিছুতেই রয়েছে গ্রাফিক্স ডিজাইনে ছোঁয়া। যা কোন না কোন গ্রাফিক্স ডিজাইনার ডিজাইন করে যাচ্ছে। 

আপনি জেনে অবাক হবেন যে ইন্টারনেটের জগতে থাকা লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট ও অ্যাপস থেকে শুরু করে আমাদের চারপাশের এমন অনেক জিনিসের ওই ডিজাইনের মাধ্যমে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজটি করে যাচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইনাররা।

তাই গ্রাফিক্স ডিজাইনের মত বিস্তীর্ণ সেক্টরে আপনার জন্য রয়েছে অপার সম্ভাবনা। এখানে আপনি ওয়েবসাইট ডিজাইন, লোগো ডিজাইন, বিজনেস কার্ড ডিজাইন, ফ্যাশন ডিজাইন, টি-শার্ট ডিজাইন, বিজ্ঞাপন ডিজাইন, ব্যানার-ফেস্টুন ও পোস্টার ডিজাইন, ভেক্টর আর্ট, ইলাস্ট্রেটর, এডিটিং, ইনফোগ্রাফিক ডিজাইন সহ আরো অসংখ্য কাজে নিজেকে দক্ষ করে তুলতে পারেন। 

কম্পিউটার কি? কম্পিউটার কিভাবে কাজ করে?

তাছাড়া বর্তমান ডিজিটাল যুগে গ্রাফিক্স ডিজাইনের টুকটাক কিছু কাজ জানা সবার জন্যই অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন সময়ে আমাদের  প্রেজেন্টেশন কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পোস্ট দেয়ার জন্য সাধারণ কিছু গ্রাফিক্স ডিজাইন করার প্রয়োজন পড়ে থাকে, তাই অন্যদের থেকে একধাপ এগিয়ে থাকতে চাইলে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বেসিক কিছু জ্ঞান থাকা অবশ্যই প্রয়োজন।

এছাড়া একজন দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে চাকরি ক্ষেত্র আপনি অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন। যা আপনার সিভি এর শোভা-বর্ধন করবে এবং আপনার কাঙ্খিত চাকরি পাওয়ার লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করবে।

আপনি যদি ভবিষ্যতে কাজ করার জন্য এমন একটি সেক্টর খুঁজে থাকেন যেখানে প্রচুর কাজের চাহিদা থাকার পাশাপাশি অর্থ উপার্জন সম্ভব হবে। তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইন হতে পারে আপনার জন্য সেরা একটি অপশন।

দক্ষ গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে আপনি বিভিন্ন নামিদামি কোম্পানির যেমন, ওয়েব ডিজাইনিং কোম্পানি, বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান, মার্কেটিং কোম্পানি  সহ গেমস ও অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি এবং বিভিন্ন মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে উচ্চ বেতনে কাজ করার সুযোগ লাভ করবেন। বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্ম যেমন- freelancer.com, fiverr, Upwork ইত্যাদিতে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করার সুযোগ তো থাকছেই।

বর্তমানে বিশ্বব্যাপী দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইনারের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। তাই এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আপনার দক্ষতা ও সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে আপনিও হতে পারেন একজন বিশ্বমানের গ্রাফিক্স ডিজাইনার। 

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে মাসে কত টাকা আয় করা যায়?

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে উপার্জন করার ব্যাপারটি অনেকগুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুটি বিষয় হলো দক্ষতা ও সৃজনশীলতা। গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে অনেকেই মাসে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা বা তারও বেশি উপার্জন করলেও খুব কম উপার্জন করা বা উপার্জন করতে না পারার লোকের সংখ্যাও কিন্তু কম নয়। 

তাই গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার পর আপনি লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করতে পারবেন এমন ভাবাটাও বোকামি। আপনি মাসে কত টাকা আয় করবেন তা আপনার দক্ষতা,সৃজনশীলতা ও পরিশ্রমের ওপর নির্ভর করছে। আপনার মধ্যে এসব গুণাবলি থাকলে মোটামুটি অংকের অর্থ উপার্জন করা অসম্ভব কিছু  না।

তবে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা চিত্রকলা মূলত সৃজনশীল পেশা। তাই যদি সৃজনশীলতা ও দক্ষতার ঘাটতি থাকে তাহলে কারও পক্ষেই এ পেশায় ভালো ক্যারিয়ার গড়া কখনোই সম্ভব নয়। এর পাশাপাশি গ্রাফিক্স ডিজাইন পেশায় সফল হতে হলে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন হবে ধৈর্য ও অধ্যবসায়ের। তাই আপনার মধ্যে এই কোয়ালিটিগুলো থাকলে আপনি এ পেশায় ভালো কিছু করবেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে আপনি সাধারণত দুই ভাবে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। যার একটি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরির মাধ্যমে অন্যটি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে। আমাদের দেশীয় অঙ্গনে ও আন্তর্জাতিক পরিসরে এমন অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেগুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে। 

হ্যাকিং কিভাবে শিখবো? হ্যাকিং শেখার উপায়

আপনার দক্ষতা অনুযায়ী আপনি এসব কোম্পানিতে চাকরি পেতে পারেন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত একজন ফ্রিল্যান্সার সাধারণত ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা বেতনে কর্মজীবন শুরু করে থাকেন, তবে সময়ের সাথে সাথে দক্ষতা ও সৃজনশীলতার গুণাবলী থাকলে আপনার বেতন ক্রমেই বৃদ্ধি পাবে। নামিদামি প্রতিষ্ঠানগুলোতে একজন অভিজ্ঞ গ্রাফিক্স ডিজাইনার লাখ টাকারও বেশি বেতন পেয়ে থাকে। 

অন্যদিকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গ্রাফিক্স ডিজাইন পেশায় আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চাইলেও আপনি করতে পারেন। এখন অনেক অনলাইন মার্কেটপ্লেস আছে যেগুলোতে আপনি আপনার সার্ভিস বিক্রি করতে পারেন। 

বিখ্যাত কিছু ফ্রিল্যান্স অনলাইন মার্কেটপ্লেস হচ্ছে freelancer.com, fiverr, Upwork ইত্যাদি। এসব মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই অনলাইনে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বিভিন্ন কাজ করে দেয়ার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। প্রথমদিকে আপনার উপার্জন কিছুটা কম হলেও সময়ের সাথে সাথে আপনার উপার্জন বাড়বে। আপনি প্রতিমাসে কি পরিমান অর্থ উপার্জন করবেন তা আপনার কাজের মান ও পরিশ্রমের উপর নির্ভর করবে। অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে একজন দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইন ফ্রিল্যান্সার মাসে ২০ হাজার থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করে থাকে।

Leave a Reply