জনপ্রিয় ৫ টি এন্ড্রয়েড গেমস

জনপ্রিয় ৫ টি এন্ড্রয়েড গেমস

গেম আমাদের সবার প্রিয় একটি এন্টারটেনমেন্ট মাধ্যম। সময় কাটানোর জন্য গেম একটি ভালো মিডিয়া যা আমাদের মস্তিষ্ক অনেক শার্প করে। বেশিরভাগ মানুষ কম্পিউটারে গেম খেলতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করলেও দিন দিন এন্ড্রয়েড গেমিং অনেক পপুলার হচ্ছে। এন্ড্রয়েডে আপনি অফলাইন অথবা অনলাইন এবং সিঙ্গেল প্লেয়ার এবং মাল্টিপ্লেয়ার উভয় ফরমেটে খেলা যায়। স্মার্টফোন আমাদের হাতের নাগালে আসার পর এন্ড্রয়েড গেমিং অনেক সহজ হয়েছে। যাহোক, বর্তমানে প্লেষ্টোরে আপনি হাজার হাজার গেম পাবেন কিন্তু এর সবগুলোই যে আপনার চাহিদা মেটাতে পারবে তা নয়। তবে এই পোস্টে আপনাদের সাথে আমরা জনপ্রিয় ৫ টি এন্ড্রয়েড গেমস নিয়ে আলোচনা করবো। আশাকরি পোস্ট পড়ার পর আপনার বেস্ট গেম নির্বাচন করতে সহজ হবে।

৫ টি এন্ড্রয়েড গেমস

বর্তমান সময়ে অনেক গেম গেমারদের কাছে পপুলারিটি পেয়েছে। তবে এখানে ডাউনলোড সংখ্যা, মার্কেট শেয়ার এবং পপুলারিটির দিক থেকে বেস্ট ৫ টি গেম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ফ্রি-ফায়ার

ফ্রী ফায়ার একটি জনপ্রিয় মাল্টিপ্লেয়ার গেম। এন্ড্রয়েড গেম ইন্ডাস্ট্রিতে বর্তমানে এই গেমের রাজ চলছে। ফ্রী ফায়ার একটি ব্যাটল রয়্যাল গেম যা বেটা হিসেবে রিলিজ করা হয় ২০১৭ সালে। তবে ২০১৯ সাল আসতে আসতে এর মোট ডাউনলোড পূর্বের সকল গেমের রেকর্ড ভেঙে দেয়। বর্তমানে ফ্রী ফায়ার বিশ্বের সব থেকে বেশি ডাউনলোড হওয়া গেম। এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ১১১ ডটস স্টুডিও এবং মার্কেটে মোবাইল ভার্সন রিলিজ করা প্রতিষ্ঠানের নাম গারেনা। ২০২০ সালের মে মাস পর্যন্ত ফ্রী ফায়ারের ডেইলি অ্যাক্টিভ ইউজার সংখ্যা ছিল ৮০ মিলিয়ন যা এন্ড্রয়েড গেমের ইতিহাসে সর্বপ্রথম।

এন্ড্রয়েড এর ১০টি জনপ্রিয় গেমস

ফ্রী ফায়ার ব্যাটল রয়্যাল গেম হওয়ায় আপনি আপনার বন্ধুদের নিয়ে টিম আকারে বা সিঙ্গেল হিসেবে খেলতে পারবেন। তবে আপনি চাইলে অন্য কোন টিমের সাথে কোলাবরেট করতে পারবেন। এখানে আপনাকে ম্যাপ সহ একটি দ্বীপে প্যারাসুট দিয়ে নামিয়ে দেওয়া হবে। ফ্রী ফায়ারে মোট ৫টি ম্যাপ রয়েছে। এদের বিশ্বের চতুর্দিকে গেম সার্ভার আছে যার কারনে অনেক সুন্দর এবং স্মুথভাবে গেম খেলা যায়। প্রতিটি ম্যাচে মোটামুটি ৫০ জনের মত প্লেয়ার থাকে। এখানে আপনাকে এনিমি কিল করে নিজেকে সারভাইভ করতে হয়। অর্থাৎ ম্যাচ জিততে হলে আপনাকে নিজে বেঁচে থাকতে হবে।  

এর পপুলারিটির কারনে ২০১৯ সালে গুগল প্লে ষ্টোর ফ্রী ফায়ারকে “বেস্ট পপুলার ভোট গেম” হিসেবে ঘোষণা করে। ২০১৯ সালের তথ্যমতে এই গেম বিশ্বজুড়ে ১ বিলিয়ন ডলার আয় অতিক্রম করেছে।

পাবজি

প্লেয়ারআননোওন’স ব্যাটলগ্রাউন্ড বা পাবজি একটি অনেক জনপ্রিয় মাল্টিপ্লেয়ার অনলাইন গেম। এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান পিইউবিজি কর্পোরেশন যা দক্ষিণ কোরিয়ান প্রতিষ্ঠান ব্লুহোলের অংশ। যদিও পাবজির ডেক্সটপ ভার্সন ২০১৬ সালে স্টিম ইউজ করে শুধু উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য রিলিজ দেওয়া হয়েছিল। এরপর একে মাইক্রোসফটের এক্সবক্স ওয়ান গেমিং কনসোলের জন্য রিলিজ করা হয়। সেখানে পাবজি খেলোয়াড়ের দিক দিয়ে স্টিমের সর্বকালের সেরা অ্যাক্টিভ গেমের তালিকায় শীর্ষ স্থান অর্জন করে নেয়।

২০১৭ সালে চায়না ভিডিও গেম প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট গেমস পাবজির এন্ড্রয়েড এবং আইওএস ভার্সন রিলিজ করে। এরপর ১ বছরের মাথায় দুই প্লাটফর্মে এই গেম ৭৩৪ মিলিয়ন ডাউনলোডের রেকর্ড করে। যার বাজার মূল্য ২০২০ অনুযায়ী দাড়ায় ৪.৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। পাবজির সফলতার কারনে এটি কয়েকবার “গেম অফ দ্য ইয়ার” এ্যাওয়ার্ডে নমিনেশন পেয়েছে।

পাবজি অন্যান্য ব্যাটল রয়্যাল গেমের মতই। তবে এখানে প্লেয়ারকে একটি দ্বীপে একদম খালি হাতে নামিয়ে দেওয়া হয়। নিজে সারভাইব করার জন্য অস্ত্র খুঁজে তারপর এনিমি কিল করতে হয়। সময়ের সাথে সাথে সেফ জোন সংকুচিত হতে থাকে যাতে সবাই ফেস টু ফেস যুদ্ধ করতে পারে। বন্ধুদের সাথে খেলার জন্য অনেক ভালো এবং উপযুক্ত একটি গেম।    

কল অফ ডিউটি

কল অফ ডিউটি একটি গেম সিরিজ। এই গেমের মূল কনসেপ্ট ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। প্রথম ৩ টি গেম রিলিজ দেওয়ার পর তারা একে একে বর্তমান সময়ের উপর নির্ভর করে গেম রিলিজ দিতে থাকে। তাদের সিরিজের মোট গেমের সংখ্যা ৮টি যার প্রথম তিনটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কভার করে। এর পরের তিনটি গেম আধুনিক যুদ্ধকে কেন্দ্র করে তৈরি এবং শেষের দুইটি গেম ভিয়েতনাম যুদ্ধের উপর তৈরি করা।

কল অফ ডিউটি একটি ফাস্ট পারসন শুটার গেম। গেমটি তৈরি করেছে যথাক্রমে ইনফিনিটি ওয়ার্ড এবং ট্রেয়ার্ক। মোবাইল প্লাটফর্মের জন্য ২০১৯ সালে মার্কেটে অ্যাকটিভিশন দ্বারা গেমটি রিলিজ দেওয়া হয়। এই গেমের মোবাইল ভার্সন ডেভেলপ করেছে টিমি স্টুডিওস (TiMi Studios)। এক বছরের মধ্যেই কল অফ ডিউটি ২৭০ মিলিয়ন ডাউনলোড কমপ্লিট করেছে এবং ৪৮০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করে ফেলেছে।

অ্যাসফাল্ট ৯

অ্যাসফাল্ট একটি রেসিং গেম সিরিজ যারা এপর্যন্ত মোট ৯ টি গেম রিলিজ দিয়েছে। অ্যাসফাল্ট ৯ তাদের লেটেস্ট রিলিজ। রেসিং গেমের দুনিয়ায় অ্যাসফাল্ট অনেক পপুলার কারণ এর কন্ট্রোল এবং গ্রাফিক্স অনেক অনেক ভালো এবং স্মুথ। যাহোক, অ্যাসফাল্ট গেম সিরিজ ডেভেলপ করেছে গেমলফট বারসলনা এবং এর পাবলিশার হলো গেমলফট। এই গেমটি বিশ্বব্যাপী রিলিজ দেওয়া হয় ২০১৮ সালে। অ্যাসফাল্ট সিঙ্গেল এবং মাল্টিপ্লেয়ার উভয় ফরম্যাটেই খেলা যায়।

কীভাবে স্লো কম্পিউটার ফাস্ট করা যায়?

রিলিজের সময় অ্যাসফাল্ট ৯ গেমে মোট কার সংখ্যা ছিল ৫২টি যা ২০২১ আপডেটের পর গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১২৩টি তে। এখানে নিউ কার আনলক করার জন্য প্রয়োজন পরে ব্লুপ্রিন্ট এর এবং প্রতিটি নতুন কারের সাথে সাথে এদের পারফর্মেন্স বাড়তেই থাকে।

লুডো কিং

এটি একটি ফেমাস ইন্ডিয়ান বোর্ড গেম। ২০১৬ সালে অ্যাপল ষ্টোর এবং গুগল প্লে ষ্টোরে গেমটি রিলিজ দেওয়া হয়। লুডো কিং ডেভেলপ করেছে মুম্বাইয়ের Gametion Technologies Pvt Ltd গেম কোম্পানি। এটি একটি মাল্টিপ্লেয়ার গেম।

লুডো কিং এমন একটি গেম যা খেলতে বসলে বোরিং লাগেনা। পরিবার বা বন্ধুবান্ধবের সাথে সময় কাটানোর জন্য যতগুলো বোর্ড গেম আছে লুডো কিং তাদের মধ্যে সব থেকে বেস্ট। গেমটি পুরো ইন্ডিয়া জুড়ে নাম্বার ওয়ান হওয়ার সন্মান অর্জন করেছেন। অনেক বলিউড সেলেব্রেটি এই গেমের প্রশংসা করেছে।

গেম যেমন আমাদের অবসর সময় কাটাতে সাহায্য করে তেমনি আমাদের ব্রেইনকে তীক্ষ্ণ করে। করোনা কালিন সময়ে অনলাইন গেম আমাদের মেন্টালি সুস্থ রাখতে সহায়তা করেছে। তবে গেম পছন্দ করার সময় আমরা নানান দ্বিধা দ্বন্দ্বে ভুগি। আশাকরি এই পোস্ট পড়ার পর আপনার সকল দ্বিধা দ্বন্দ্ব দূর হয়ে যাবে। আপনার মতামত অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন ধন্যবাদ। 

Leave a Reply